অনকোলজি স্তন ক্যান্সার

স্তন ক্যান্সার স্ক্রিনিং

৫০ থেকে ৭০ বছর বয়সের মহিলাদের স্তনের স্ক্রিনিং করানো উচিত। বাংলাদেশে আমাদের কোন বিশেষ স্ক্রিনিং প্রোগ্রাম নেই, এই বয়সের মহিলাদের প্রতি ৩ বছরে একবার ম্যামোগ্রাম করানোর কথা বলা হয়ে থাকে।

একজন মহিলা ডাক্তার বা সহকারীর মাধ্যমে ম্যামোগ্রাম( স্তনের এক্সরে) করানো হয় এবং কোন অস্বাভাবিকতা আছে কিনা তা খুঁজে দেখা হয়। প্রাথমিক স্তরে স্তন ক্যান্সার শনাক্ত করাই এর লক্ষ্য, যখন স্তনের পরিবর্তনসমূহ অনুভব করার পক্ষে খুবই ছোট এবং সফলভাবে চিকিৎসা করার ও পুরোপুরিভাবে সেরে যাওয়ার ভাল সম্ভাবনা রয়েছে। গণনায় দেখা গেছে, স্ক্রিনিং প্রতি বছর ১৪০০ জীবন রক্ষা করে।

সব ক্যান্সারই স্তন স্ক্রিনিং এ ধরা পরে না। দুটো স্ক্রিনিং এর মাঝের সময়েও ক্যান্সার হয়ে যেতে পারে। যদি আপনি নিয়মিত স্তনের স্ক্রিনিং করিয়ে থাকেন, তারপরও নিজের স্তন সম্পর্কে সচেতন থাকা জরুরী, যাতে আপনার স্তনের যে কোন পরিবর্তন আপনি প্রাথমিক অবস্থাতেই তের পান এবং ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করতে পারেন। স্ক্রিনিং এর সাথে সাথে তাই নিজে নিজের স্তনের নিয়মিত পরীক্ষা করা উচিত।

ম্যামোগ্রাফি কীভাবে করা হয়?

স্ক্রিনিং মহিলা কর্মীকে দিয়ে করানো হয়, যারা স্তনের কোন অস্বাভাবিকতা শনাক্তকরণের জন্য ম্যামোগ্রাম নেয়। একবারে একটি স্তনের এক্সরে করা হয়। একটি এক্সরে মেশিনের উপর স্তনটি রাখা হয় এবং আস্তে তবে বেশ শক্তভাবেই একটি স্বচ্ছ প্লেট দিয়ে চাপ দেওয়া হয়। প্রতিটি স্তনের দুটি করে ভিন্ন দিক থেকে এক্সরে নেওয়া হয়। বেশিরভাগ মহিলার কাছেই ব্যাপারটি অস্বস্তিকর ও কারো কারো কাছে বেদনাদায়কও মনে হয়। তবে এ অস্বস্তি দ্রুতই চলে যায়।

ম্যামোগ্রাফির ফলাফল রিপোর্টসহ আপনার হাতে দেওয়া হবে। যদি কিছু ধরা না পড়ে , আপনাকে হয়ত একটি আল্ট্রাসাউন্ড করার পরামর্শ দেওয়া হবে। এতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই, যখন ম্যামোগ্রাফিতে কিছু পাওয়া যায় না, তখন আরও ভাল মত পরীক্ষা করে দেখার জন্য আল্ট্রাসাউন্ড করতে বলা হয়। ম্যামোগ্রামে সিস্ট দেখা যায় না, যা আল্ট্রাসাউন্ড দিয়ে দেখা যায়।

উচ্চ ঝুঁকি সম্পন্ন মহিলাদের স্ক্রিনিং

যদি আপনার পরিবারের সদস্যদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার ইতিহাস থেকে থাকে, তবে আপনাকে ৫০ বছর বয়সের আগেই স্ক্রিনিং করাতে হবে। আপনি উচ্চ ঝুঁকি সম্পন্ন মহিলাদের একজন, যদিঃ

আপনার যে কোন এক দিকের পরিবারের দুই বা তার বেশি ঘনিষ্ট আত্মীয়ের (যাদের অন্তত একজন আপনার মা অথবা বোন) স্তন ক্যান্সার হয়ে থাকে।

· আপনার তিনজন ঘনিষ্ট আত্মীয়ের যে কোন বয়সে স্তন ক্যান্সার ধরা পড়ে থাকে।

· একজন ঘনিষ্ট আত্মীয়ের স্তন ক্যান্সার এবং আরেকজনের ডিম্বাশয়ের (ওভারি) ক্যান্সার হয়ে থাকে ( যাদের একজন আপনার মা , বোন বা মেয়ে)

· আপনার মা বা বোনের ৪০ বছর বয়সের আগেই স্তন ক্যান্সার শনাক্ত হয়ে থাকে।

· আপনার মা অথবা বোনের উভয় স্তনেই ক্যান্সার ধরা পড়ে থাকে এবং তা ৫০ বছর বয়সের পূর্বে প্রথম ধরা পড়ে।

যদি আপনার স্তন ক্যান্সার হওয়ার অতিরিক্ত ঝুঁকি থাকে এবং আপনার বয়স ৪০ এর বেশি হয়, আপনার বছরে একবার ম্যামোগ্রাফি দিয়ে স্ক্রিনিং করানো উচিত। যদি আপনার বয়স ৪০ বছরের কম হয়, তবে একটি আল্ট্রাসাউন্ড বা এম আর আই স্ক্যান করানোর পরামর্শ দেওয়া হবে, কারণ এ সময় আপনার স্তন স্বচ্ছ ম্যামোগ্রাম করানোর পক্ষে বেশি ভরাট হয়ে থাকে।

About the author

Maya Expert Team