এন্ডোক্রিনোলজি স্বাস্থ্য

হাইপোথাইরয়ডিজমের জটিলতা

যদি হাইপোথাইরয়ডিজম চিকিৎসা করা না হয় তাহলে নানা প্রকারের জটিলতা দেখা দিতে পারে।

হৃদরোগঃ

হাইপোথাইরয়ডিজম থাকার কারনে হৃদরোগে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি বেড়ে যায়। (হৃদপিণ্ড এবং রক্তনালীর সমস্যা )

এর কারণ হল যদি শরীরে কম মাত্রার Thyroxine হরমোন থাকে তাহলে তা রক্তে কোলেস্টেরল এর মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। যদি অনেক বেশি মাত্রার কোলেস্টেরল থাকে তাহলে তার ফলে ধমনীতে চর্বি জমে যায়, যার ফলে রক্ত প্রবাহে/চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে।

যদি আপনি কম কার্যক্ষমতা সম্পন্ন থাইরয়েড এর জন্য চিকিৎসা নিতে থাকেন এবং যদি আপনার কখনও বুকে ব্যথা অনুভূত হয় তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করবেন। কেননা যদি অন্ন কোন সমস্যা বা জটিলতা দেখা যায়, তা নির্ণয় করে চিকিৎসা করা সম্ভব হবে।

গলগণ্ড (Goitre):

গলগণ্ড বলতে থাইরয়েড গ্রন্থির স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি মাত্রার অথবা অস্বাভাবিক মাত্রায় ফুলে যাওয়াকে বোঝায়। যার কারনে গলার সামনে এক্তি চাকার মত অনশের সৃষ্টি হয়। এটি হাইপোথাইরয়ডিজমে আক্রান্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে হতে পারে যখন শরীর তার চাহিদা অনুযায়ী অনেক বেশি পরিমাণে থাইরয়েড হরমোন উৎপাদনের জন্য থাইরয়েড গ্রন্থিকে সক্রিয় করে।

 

গর্ভাবস্থায় জটিলতাঃ

হাইপোথাইরয়ডিজম বন্ধাত্ত সৃষ্টি করতে পারে যদি এটি গর্ভাবস্থায় চিকিৎসা করা না হয়। সেক্ষেত্রে কিছু জটিলতা হবার ঝুঁকি থেকেই যায়।

  • প্রি-এক্লাম্পসিয়াঃএটি মায়ের শরীরে পানি জমে হাত পা ফুলে যায়, উচ্চরক্তচাপ সৃষ্টি করে এবং বাচ্চার স্বাভাবিক বৃদ্ধির ব্যঘাত ঘটায়।
  • মায়ের রক্তশুন্যতা
  • কম কার্যক্ষমতা সম্পন্ন থাইরয়েড নিয়ে জন্ম গ্রহন।
  • জন্মগত ত্রুটি
  • জন্মের পরপরই রক্তক্ষরণ
  • বাচ্চার শারীরিক এবং মানসিক সমস্যা
  • অপরিণত (Premature) অথবা কম ওজনের বাচ্চা
  • মৃত সন্তান প্রসব অথবা অকাল গর্ভপাত

এই সব সমস্যা সাধারনত যথাযথ চিকিৎসার মাধ্যমে সারানো সম্ভব। কাজেই অবশ্যই আপনাকে আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করতে হবে যদি আপনার কম কার্যক্ষমতা সম্পন্ন থাইরয়েড থাকে এবং আপনি যদি গর্ভবতী হন অথবা আপনি যদি গর্ভধারনের চিন্তা করেন।

About the author

Maya Expert Team

Leave a Comment