ইউরোলজি মূত্রনালির সংক্রমণ

মূত্রনালীর সংক্রমণ

Written by Maya Expert Team

ইউ টি আই অথবা মূত্রনালির সংক্রমণ নানা বয়স এবং রেসের মহিলাদের জন্য একটা সাধারণ সমস্যা। এটি পুরুষদেরও হতে পারে কিন্তু এটি মহিলাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বড় একটি সমস্যা। আমি মনে করি, এমন কাউকে পাওয়া যাবেনা যিনি এই সমস্যার পড়েন নি।

সুতরাং ইউ টি আই কি? কারা এর দ্বারা আক্রান্ত হয়? এবং আপনি কি করবেন যদি এটি আপনার হয়? আমরা সকল ধরণের প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব।

ইউ টি আই কি?

ইউ টি আই হল একদল সংক্রামক যা মূত্রনালির বিভিন্ন অংশ কে প্রভাবিত করে, এটি কিডনি ও এর বাইরের অধিকাংশ অংশ থেকে শুরু হয়ে থাকে যাকে মূত্রনালি বলা হয়। ।এটি অন্যান্য যৌন বাহিত রোগের মত নয়, কিন্তু ইউ টি আই সম্পূর্ণভাবে আলাদা একটি সমস্যা যা আপনার অন্ত্রে বাস করা সামান্য ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দ্বারাও হতে পারে।

কি ঘটে যখন ইউ টি আই হয়?

এর লক্ষণ খুবই সুস্পষ্ট এবং তারা অনতিবিলম্বে জানুন, যারা এ রোগে ভুগছেন। তাদেরঃ

১। মূত্র ত্যাগ করার সময় জ্বালা করে,

২। সাধারণভাবে প্রয়োজনের চায়তে বেশি বার প্রসাব হবার অনুভূতি হয়,

৩। প্রসাব আটকিয়ে রাখা যায় না এমন অনুভব হয়,

৪। কারও কারও প্রসাবে রক্ত ও দেখা যায়,

৫। জ্বর আসতে পারে,

৬। কোমরে ব্যাথ্যা।

কেন ডাক্তার দেখাবেন যদি আপনার ইউ টি আই থাকে?

অবশ্যই, এই সমস্যা টি ব্যাথ্যাময় এবং অস্বচ্ছন্দায়ক যে কারও জন্য। এটির সংক্রমণ আপনার কিডনিকে প্রভাবিত করতে পারে। এটি আপানার কিডনি এবং মূত্রাশয়ে পাথর হবার সুযোগ বাড়িয়ে দেয়।

গর্ভাবস্থায়, ইউ টি আই বিপদজনক হতে পারে, এটি জরায়ুতে ছড়িয়ে পড়তে পারে এবং বাচ্চার থলিকে ক্ষতি গ্রস্থ করতে পারে। এটি সম্পূর্ণরূপে বিপদজনক।

ইউ টি আই কার হতে পারে?

১। গর্ভবতী মহিলার,

২। যুবতী, যৌন সক্রিয় নারী ( বাংলাদেশে সাধারণত যারা নববিবাহিত নারী ),

৩। যদি আপনাকে ক্যাথিটার দেয়া হয় অথবা সে জায়গায় অন্য কোন মেডিক্যাল কার্য প্রণালী করা হয়েছে এমন যদি হয়।

৪। যদি কোন প্রতিবন্ধকতা থাকে। ( এটি শুধু মাত্র ডাক্তার দ্বারা পরীক্ষা করে উদ্ঘাটন করুন )।  

ইউ টি আই থাকলে আপনার কি করা উচিৎ?

বর্ণিত লক্ষণ সমূহের মধ্যে যদি এক বা তার অধিক লক্ষণ সমূহ আপনার ক্ষেত্রে মিলে যায়, তবে অবশ্যই আপনার ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিত। ইতোমধ্যে, এই অবস্থার উন্নতি করতে আপনার জীবনধারা বদলানঃ

১। দিনে কমপক্ষে ৮ গ্লাস পানি পান করুন।

২। নিয়মিত মূত্রাশয় খালি রাখুন, অন্তত ৩ ঘণ্টায় একবার। এবং অবশ্যই ঘুমাতে যাবার আগে।

৩। আপনি যদি পশ্চাদ্দিকে রোগ নির্ণয় করিয়ে থাকেন তাহলে, অন্তত দুইবার পায়খানা করুন, যাতে পরিস্কার থাকে।

৪। সংক্রমণের শুরুতেই আপনার খাবার পানিতে এক চামচ বেকিং সোডা যোগ করার চেষ্টা করুন। এটি আপনার প্রসাব কে বেশি অম্লীয় করবে যা এই সংক্রমণের সাথে লড়ায় করতে সাহায্য করবে। ( ভিটামিন সি এর সাথে নিবেন না এটি কার্যকর কিনা তা প্রমাণিত না হলেও তা অ্যান্টিবায়োটিক থেরাপির সাথে যুক্ত হতে পারে )।

৫। আপনি ভিটামিন সি এবং এ নেয়া বাড়িয়ে দিন। এটি সংক্রমণের সাথে লড়ায় করবে এবং আরোগ্য করবে।

৬। ক্যাফিন এবং অ্যালকোহল পরিত্যাগ করুন। এটি প্রমাণিত যে এগুলো অধিকতর খারাপ।

৭। পায়খানা করার পর, জায়গাটি পরিস্কার করার সময় সামনে থেকে পেছনে পরিস্কার করতে হবে।

৮। সূতি অন্তর্বাস পরিধান করুন এবং নিচে আঁটসাঁট কাপড় পরা হতে বিরত থাকুন।

৯। আপনি যখন সংক্রমণ বহন করছেন আপনার জন্য উত্তম হবে মিলন থেকে বিরত থাকা কিন্তু আপনার সঙ্গী যদি কনডম পরিধান করেন তাহলে আপনি এই সংক্রমণ ছড়ানো হতে নিরাপদ থাকবেন। এটি মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে মিলনের পূর্বে এবং পরে প্রসাব করতে হবে। উভয় সঙ্গীকেই পরে পরিস্কার হতে হবে।

১০। চিকিৎসককে দেখানোর পূর্বে আপনি বিবেচনা করতে পারেন প্রসাবের একটি রুটিন, দূরবীক্ষণ এবং সাংস্কৃতিক পরীক্ষা করাতে পারেন। এতে আপনাকে বার বার ডাক্তার দেখাতে যেতে হবেনা।

১১। আপনি প্যারাসিটামল অথবা এ্যাসপিরিনের মত ওষুধ নিতে পারেন ব্যাথ্যা কমানোর জন্য।

১২। বিশ্বজনীন ভাবে ক্র্যানবেরির রস গাছামো প্রতিষেধক হিসেবে বিবেচনায় করা হচ্ছে ইউ টি আই এর জন্য। কিন্তু এটি অনেক দেশের অনেক জায়গাতেই পাওয়া যায়না। যারা এই রোগে আক্রান্ত তারা দিনে যতটা সম্ভব এক কাপ আনারসের রস নেবার চেষ্টা করুন। আনারসে একটি এনজাইম থাকে যা এই সংক্রমন সারাতে সাহায্য করে।

About the author

Maya Expert Team

Leave a Comment