নারী স্বাস্থ্য ও দেহতত্ত্ব নারী স্বাস্থ্য- গর্ভাবস্থা

মাতৃত্বকালীন ছুটি

Written by Maya Expert Team

মা হওয়াটা বিশ্বের সবচেয়ে ব্যতিক্রমী অনুভূতি। প্রতিটি মা এই সময় বিশেষ অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়ে যায়।   প্রথম আলট্রাসনোগ্রাফি এবং নবজাতকের মায়ের গর্ভে নড়াচড়ার প্রথম অনুভূতি- এরকম ছোট ছোট অনুভূতিগুলি অন্য কোনও কিছুর সাথে তুলনা করা যায় না। মায়ের কাছে সন্তান ছাড়া জীবনে আর কোনকিছুই বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় না। পরিবেশ, সামাজিক অবস্থান যাই হোক না কেন, একজন মায়ের জন্য গর্ভাবস্থার সময়টুকু অনেক মূল্যবান।

মা হওয়া যেমন একটি আনন্দদায়ক অনুভূতি, তেমনই এটি মায়ের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ একটি সময়। গর্ভবতী মহিলার কমপক্ষে প্রতি মাসে চেক আপ করা উচিত। এসময় প্রয়োজনীয় ভিটামিন গ্রহণ ও পর্যাপ্ত বিশ্রাম গর্ভবতী মায়েদের জন্যে খুব দরকার। তবে সব মায়েরা কিন্তু নিজেদের স্বাস্থ্যের যত্ন  এবং বিশ্রাম সঠিকভাবে নিতে পারে না। কিছু মায়েদেরকে তাদের পরিবারের জন্য কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। বাইরে কাজ করার পাশাপাশি সময়ে নিজের শরীরের যত্ন নেয়া তাদের জন্যে খুব কঠিন হয়ে পড়ে। 

কারখানায় বা গার্মেন্টসে কাজ করা অবস্থায় গর্ভবতী হওয়া একজন মায়ের পক্ষে অনেক সময় কঠিন অবস্থা হয়ে দাঁড়ায়। বাংলাদেশে, কারখানায় কর্মরত গর্ভবতী মায়েরা পুরো বেতনের সাথে ১৬ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন ছুটি পাওয়ার অধিকার রাখেন। তবে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, মাত্র ২৮.৭% মহিলা শ্রমিক চার মাসের জন্য মাতৃত্বকালীন ছুটি পেয়েছেন।সম্প্রতি প্রস্তাবিত বাংলাদেশ শ্রম আইন শ্রমিকদের ছুটিতে যাওয়ার আগে আট সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন ছুটি এবং অন্যান্য সুবিধাগুলির অধিকার দেয়। এই সুবিধা সকল শ্রেণীপেশার মায়েদের জন্যে নিরাপদ মাতৃত্ব নিশ্চিত করতে সাহায্য করবে।

About the author

Maya Expert Team

Leave a Comment