পেশাগত তথ্য মনোসামাজিক মাতৃত্বকালীন ছুটি

মাতৃত্বকালীন ছুটি সম্পর্কিত অধিকার

Written by Maya Expert Team

বর্তমানে কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহন ব্যপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং বাংলাদেশে ৪৯.৫ মিলিয়ন কর্মীর মধ্যে ৩৮% হল নারী (BBS, 2006) । যখন এত পরিমানে নারী কর্মক্ষেত্রে নিযুক্ত তখন মাতৃত্বকালীন ছুটি অবশ্যই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বাংলাদেশের শ্রমিক আইন প্রায় ১০০ বছর পুরোনো একটি আইন, যা প্রণীত হয় ১৮৮১ সালে। পরবর্তীতে নারীকে ক্ষতিপূরণ দেয়া সহ শিশু অধিকার, বেতন বৈষম্য দূরীকরণ, শ্রমিক ইউনিয়ন এসব বিষয়েও আইন প্রণীত হয়। ২০০৬ সালে বাংলাদেশে শ্রমিক আইন পাশ হয় যার ৫ নং অধ্যায়ে নারীদের মাতৃত্বকালীন ছুটি নিশ্চিত করা হয়। এই ছুটির আওতায় নারী একটি সন্তান জন্মের আগে ও পরে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবে এবং এ সময়ে পূর্ণ বেতনও ভোগ করবে (BLA, 2006)।  মাতৃত্বকালীন ছুটি সকল কর্মজীবী নারীর অধিকার এবং এ সম্পর্কে বিস্তারিত বিবরণ এখানে দেয়া হল।

ছুটির মেয়াদঃ

মাতৃত্বকালীন ছুটি মোট ১৬ সপ্তাহের যার মধ্যে ৮ সপ্তাহ সন্তান জন্মদানের আগে এবং ৮ সপ্তাহ সন্তান জন্মানোর পরে নেয়া যায় । (BLA,2006)

কারা পাবেনঃ

যে সকল নারী কোন প্রতিষ্ঠান এ সর্বনিম্ন ৬ মাস কাজ করেছেন এবং এখনও কাজ করছেন তারা এই সুবিধা পাবেন । এই কর্মজীবী নারীদের অবশ্যই প্রতিষ্ঠানের স্থায়ী বা সাময়িক ভাবে স্থায়ী কর্মচারী হতে হবে। (BLA,2006)

মাতৃত্বকালীন ছুটিতে বেতনঃ

বাংলাদেশ শ্রমিক আইনের ৫ নং অধ্যায়ের ৪৭ নং ধারায় মাতৃত্বকালীন ছুটি থাকাকালীন বেতনের বিষয়ে বিষদ ভাবে বর্ণনা দেয়া আছে। প্রতিষ্ঠান বা চাকুরিদাতা অবশ্যই মাতৃত্বকালীন ছুটির সময়ে নারীকে আইন অনুযায়ী তার প্রাপ্য বেতন দিবে। নারী গর্ভবতী তা প্রমানের কাগজ জমা দেয়ার তিন দিনের মধ্যে ৮ সপ্তাহের বেতন  দিয়ে দিতে হবে। পরের ৮ সপ্তাহের বেতন সন্তান জনদানের প্রমান সহ কাগজ জমা দেয়ার ৩ দিনের মধ্যে নারীকে দিয়ে দিতে হবে । নারী যদি চায় এক সাথে ১৬ সপ্তাহের বেতন নিতে পারে সন্তান জন্ম হওয়ার পর। অবশ্যই সন্তান জন্মানোর প্রমাণস্বরূপ কাগজ জমা দেয়ার ৩ দিনের মধ্যে নারীকে ১৬ সপ্তাহের বেতন দিয়ে দিতে হবে । (BLA,2006)

কারা ছুটি পাবে নাঃ

সকল নারী মাতৃত্বকালীন ছুটির অধিকার ভোগ করতে পারবে না। বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে এই আইন কার্যকর নয়। যেমন কোন নারী যদি কোন প্রতিষ্ঠানে ৬ মাসের কম কাজ করে তাহলে তার জন্য এই আইন প্রযোজ্য না। যেসব নারীর ২ বা ২ এর অধিক জীবিত সন্তান আছে, তারা মাতৃত্বকালীন ছুটি পাওয়ার অধিকার রাখে না। তারা হয়ত অসুস্থতা জনিত ছুটি বা অন্যান্য ছুটি নিতে পারে, কিন্তু তারা মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবে না। (BLA,2006)

মাতৃত্বকালীন ছুটি প্রতিটি কর্মজীবী নারীর অধিকার। সকল প্রতিষ্ঠান নারীকে এই ছুটি দিতে বাধ্য থাকবে এবং অবশ্যই মাতৃত্বকালীন ছুটি বিষয়ে নারীর প্রতি কোন বৈষম্য করবে না। নারী বান্ধব কর্মক্ষেত্র তখনই তৈরি করা সম্ভব যেখানে সকল নারী সঠিক ভাবে মাতৃত্বকালীনছুটি ভোগ করতে পারবে এবং বাচ্চা দেখাশোনার সুযোগ সুবিধা পাবে। গবেষণায় দেখা গেছে এরকম সুযোগ সুবিধায় নারীর কাজ তরান্বিত হয় যা প্রতিষ্ঠানের জন্য সুফল বয়ে আনে (Miech, 2003)।

References

  1. The Bangladesh Labour Act, 2006, Ministry of Labour and Employment, Bangladesh
  2. Bangladesh Bureau of Statistics, http://www.bbs.gov.bd/accessed in 20th June, 2015

Miech, R, A,. (2003),.Occupational stratification over the life course: a comparison of occupational trajectories across race and gender during the 1980s and 1990s. Work and occupations

About the author

Maya Expert Team

Leave a Comment