রক্তচাপ স্বাস্থ্য হৃদরোগ সংক্রান্ত

উচ্চ রক্তচাপের প্রতিকার

 

স্বাস্থ্যকর খাবার, নিয়ন্ত্রিত ওজন, রুটিনমাফিক ব্যায়াম, অল্প পরিমানে এলকহল, ধুমপান বর্জন এর মাধ্যমে উচ্চ রক্তচাপ প্রতিকার করা সম্ভব।

খাদ্যাভাসঃ
পাতে লবন এবং খাবারে অতিরিক্ত লবন খাওয়া বাদ দিয়ে প্রচুর পরিমানে ফল এবং সবজি খাবার অভ্যেস গড়ে তুলতে হবে।
লবন রক্তচাপ বৃদ্ধি করে। আপনি যত বেশি লবন খাবেন তত বেশি আপনার রক্ত চাপ বাড়বে। আপনাকে প্রতিদিন ৬ গ্রাম( ০.২ ওজন) এর কম অথবা এক চা চামচ আন্দাজ লবন খাবার অভ্যেস করতে হবে।
কম চর্বি যুক্ত খাবার যাতে থাকবে প্রচুর আশ যুক্ত খাবার (উদাহরণঃ ঢেঁকি ছাটা চাল, রুটি, পাস্তা), যথেষ্ট পরিমান ফল এবং সবজি রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। ফল এবং শাক সবজিতে আছে প্রচুর ভিটামিন আর মিনারেল এবং আশ জাতীয় খাবার শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। প্রত্যেকদিন ৫ বার ফলমুল আর শাকসব্জি খাওয়ার লক্ষ্য স্থির করুন, যেখানে প্রত্যকটির পরিমান থাকবে ৮০ গ্রাম করে।

এলকোহলঃ
প্রতিদিন যদি আপনি নির্দিষ্ট লেভেল এর উপরে এলকোহল পান করেন তা আপনার রক্তচাপকে অনেকাংশে বাড়িয়ে তুলবে। নির্দিষ্ট লেভেল এর ভিতরে এলকোহল পান করা উচ্চ রক্তচাপ হবার ঝুঁকি কমানোর একটি ভাল পন্থা।

এলকোহল পান এর নির্ধারিত পরিমাপ হচ্ছেঃ
♦পুরুষরা প্রতিদিন ৩-৪ ইউনিট এর বেশি এলকোহল পান করতে পারবে না।
♦ মহিলারা প্রতিদিন ২-৩ ইউনিট এর বেশি এলকোহল পান করতে পারবে না।

এলকোহলে অতিরিক্ত ক্যালোরি থাকে যা আপনার ওজন বাড়িয়ে তুলবে। যা আপনার রক্তচাপ ও বাড়াবে।

ক্যাফেইনঃ
প্রতিদিন ৪ চাপ এর বেশি কফি পান করলে তা রক্তচাপ কে বাড়িয়ে তুলতে পারে। আপনার পছন্দের পানীয় এর তালিকায় যদি চা, কফি অথবা অন্যান্য ক্যাফেইন জাতীয় পানীয় ( যেমনঃ কোলা, এবং কিছু এনার্জি ড্রিঙ্ক) থাকে তা খাওয়া কমিয়ে আনতে হবে।
একটি পরিপুর্ন খাদ্য তালিকায় চা, কফি পানীয় হিসেবে থাকতে পারে কিন্তু এটাও গুরুত্বপূর্ণ যে এটা আপনার খাবারের জলীয় অংশের একমাত্র উৎস নয়।

 

ওজনঃ
অতিরিক্ত ওজন আপনার হার্টের উপর চাপ সৃস্টি করে সম্পুর্ন শরীরে রক্ত সঞ্চালনের জন্য। যা আপনার রক্তচাপকে বাড়াতে পারে। বি.এম.আই ক্যালকুলেটর দিয়ে আপনি বের করতে পারবেন আপনাকে ওজন কমাতে হবে কিনা। যদি আপনাকে ওজন কমাতে হয় তাহলে মনে রাখবেন কিছু পাউন্ড ওজন কমালে তা আপনার রক্তচাপ এবং সম্পুর্ন শরীরের উপর ব্যাপক পরিবর্তন আনবে।

ব্যায়ামঃ
শরীরকে সক্রিয় রাখলে এবং প্রতিদিন ব্যায়াম করলে তা হার্ট এবং রক্তনালীকে ভাল রাখার মাধ্যমে রক্তচাপ কমায়।
রুটিনমাফিক ব্যায়াম আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করে যা আপনার রক্তচাপকেও কমাতে সাহায্য করে।
একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ১৫০ মিনিট( ২ঘন্টা ৩০মিনিট) moderate intensity aerobic activity (যেমনঃ দ্রুত হাটা) করা উচিত।

বাগান করা এবং হাটাও শারিরীক পরিশ্রম এর অন্তর্গত।

ধূমপানঃ
ধুমপান সরাসরি রক্তচাপ বাড়ায় না কিন্তু হার্ট আটাক এবং স্ট্রোক এর ঝুকি অনেকাংশে বাড়িয়ে তুলে। ধূমপানের মত উচ্চ রক্তচাপ ও আপনার রক্তনালী কে সরু করে। যদি আপনার উচ্চ রক্তচাপ থাকে এবং আপনি ধুমপান ও করেন তাহলে আপনার রক্তনালী খুব তাড়াতাড়ি সরু হয়ে যাবে এবং ভবিষ্যৎ এ আপনার হার্ট এবং ফুসফুস এর রোগ হওয়ার ঝুকি অনেক বেড়ে যাবে।

About the author

Maya Expert Team

Leave a Comment