সুস্থতা: শরীরের গড়ন সম্পর্কে জানুন

শরীরের গড়ন সম্পর্কে জানুন
আমরা সবাই জানি যে, বডি মাস ইন্ডেক্স (BMI) দিয়ে আমাদের শরীরের ওজন স্বাস্থ্যকর কিনা তা বোঝা যায়। আপনি মায়া ওয়েব সাইটের BMI calculator ব্যবহার করে খুব সহজেই আপনার BMI নির্ণয় করতে পারেন। যদি আপনার BMI স্বাভাবিক হয়, তাহলে আপনার ওজন ঠিক আছে, আর যদি BMI স্বাভাবিকের উপরে হয় তাহলে বুঝতে হবে আপনার শরীরে বাড়তি চর্বি আছে। তবে BMI দিয়ে কেবল আংশিক চিত্র পাওয়া যায়, আপনার শরীরের গড়নটাও একটি বিশেষ ভুমিকা পালন করে! আপনি আপেল আকৃতির নাকি পেয়ারা আকৃতির?


আপনার কোমর ও নিতম্বের অনুপাত
আপনার কোমর (নাভি বরাবর) ও নিতম্বের মাপ নিন, এরপর কোমরের যে মাপ পেলেন সেটাকে নিতম্বের মাপ দিয়ে ভাগ দিন। মহিলাদের ক্ষেত্রে ভাগফল যদি ০.৮-এর বেশি হয় তাহলে বুঝতে হবে আপনার কোমরের কাছে অনেক বাড়তি ওজন আছে, অর্থাৎ আপনার আকৃতি আপেলের মত। যদি ভাগফল ০.৮-এর কম হয় তাহলে বুঝতে হবে আপনার হাঁটুর উপরে ও নিতম্বের চারপাশের ওজন তুলনামূলকভাবে বেশি, অর্থাৎ আপনার আকৃতি পেয়ারার মত।


আপেল আকৃতি
পেটে অত্যধিক চর্বি হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ও কিডনির সমস্যার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। এই চর্বি পাকস্থলীর বিভিন্ন অংশ (abdominal organs) ঘিরে থাকা অমেন্টাম (omentum) নামক পর্দার ভেতর থাকে। এখান থেকে এই চর্বি সহজেই আপনার লিভার (liver) ও অন্যান্য জায়গায় পৌঁছে যেতে
পারে। আপনার প্যান্ট পেটের ওপর থেকে পিছলে পড়ে গেলে বা আপনার ভুঁড়ি প্যান্টের উপর দিয়ে বের হয়ে ঝুলে থাকলে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার কোমরের নিচের অংশ অথবা উপরের অংশের চাইতে বেশি আপনার কোমর বড়। তবে আপনার জন্য সুসংবাদ হচ্ছে যে আপেল আকৃতির লোকজন দ্রুত ওজন কমাতে পারে। নিতম্ব ও হাঁটুর উপরের অংশ (thigh)-এর শক্ত চর্বির চাইতে এই চর্বি ঝরিয়ে ফেলা সহজ।

আপেল আকৃতির শরীরের জন্য কার্ডিওভাস্কুলার (Cardiovascular) ব্যায়াম হচ্ছে সবচেয়ে আদর্শ। এতে আপনার হৃদস্পন্দন দ্রুততর হয় এবং ক্ষতিকারক চর্বি ঝরিয়ে ফেলে। হাঁটা, দৌড়ানো, সাঁতার কাটা এবং সিঁড়ি বেয়ে ওঠা হচ্ছে এ ধরনের ব্যায়ামের মধ্যে সবচেয়ে ভাল। শরীরের নির্দিষ্ট জায়গার চর্বি কমানোর জন্য ওঠ-বস করা বা সে ধরনের অন্য কোনো ব্যায়াম এড়িয়ে চলুন। এই ব্যায়ামগুলো শরীরের চর্বি পোড়ায় না, হৃদপিণ্ডের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায় না এবং এগুলোর কারনে আপনার পিঠে ব্যাথা হতে পারে।

এবার ডায়েট প্ল্যানের বিষয়ে যা জানা দরকার তা হল আপনার লাল চাল বা লাল আটার মত জটিল ধরনের কার্বোহাইড্রেট এবং আঁশযুক্ত খাবার বেশি বেশি খাওয়া উচিত। এগুলো রক্তের শর্করার পরিমাণ দ্রুত বাড়িয়ে দেয়ার বদলে আস্তে আস্তে শরীরের শক্তির যোগান দেয় এবং আপনার কম খিদে পায়।


পেয়ারা আকৃতি (Pear shape)
পেয়ারা আকৃতির লোকজনের চর্বি তাদের নিতম্ব ও হাঁটুর উপরের অংশ (thigh)-এর চারপাশের সাবকিউটেনাস টিস্যু (subcutaneous tissue)-তে জমা থাকে। একে জায়নয়েড ওবেসিটি (Gynoid Obesity)-ও বলে এবং এ আকৃতির মহিলাদের শ্রোণিদেশ (pelvis) চওড়া হওয়ায় গর্ভাবস্থায় এবং বাচ্চা জন্ম দেয়ার সময় তাদের বিশেষ সুবিধা হয় বলে মনে করা হয়। তাঁদের বিভিন্ন দীর্ঘমেয়াদী অসুখে (chronic diseases) ভোগার সম্ভাবনাও কম থাকে। তবে শরীরের নিচের অংশের অতিরিক্ত চর্বির কারনে হাঁটুতে চাপ পড়ে এবং ওস্টিওপোরোসিস (osteoporosis)-এ ভোগার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

আপনার কোমরে ঠিকভাবে লাগে এমন প্যান্ট পরার সময় তা আপনার নিতম্বের কাছে আঁটকে গেলে বুঝতে হবে আপনি পেয়ারা আকৃতির। বাড়তি সাবকিউটেনাস ফ্যাট বা চামড়ার নিচে জমে থাকা চর্বি পেটের চর্বির চাইতে স্বাস্থ্যকর হলেও, এর ভেতর দিয়ে কম রক্ত কম প্রবাহিত হয় এবং এটি
ঝরিয়ে ফেলা কঠিন। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভাল ব্যায়াম হচ্ছে স্কোয়াট, পুশ-আপ, একপাশে রোয়িং এবং আড়াআড়ি ক্রাঞ্চের মত বিভিন্ন রেজিস্ট্যান্স ট্রেইনিং (resistance training)। প্রতিটি ব্যায়াম ১২-২০ বার করুন এবং কোন বিরতি না দিয়ে বা দিলেও সামান্য বিরতি দিয়ে পরের ব্যায়ামটি শুরু করুন। ব্যায়াম শুরুর আগে অবশ্যই ওয়ার্ম আপ করে নিন এবং ব্যায়ামের পর কিছুক্ষণ জিরিয়ে শরীর ঠাণ্ডা করে নিন।

আপেল আকৃতির চাইতে পেয়ারা আকৃতির লোকেদের শরীরে চর্বি জমে যাওয়ার প্রবণতা বেশি দেখা যায়, তাই বেশি চর্বিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন এবং আঁশযুক্ত খাবার খাওয়া বাড়িয়ে দিন। আঁশ চর্বির সাথে মিশে তা শরীর থেকে বের করে দেয়।

আপনি ওজন কমাতে পারেন, টোন ডাউন (tone down) করতে পারেন কিন্তু শরীরের গড়ন বদলাতে পারবেন না। হুজুগে ডায়েট করার চাইতে শরীরের গড়ন সম্পর্কে জানুন এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিন।

 

0 comments

Leave a Reply