নিজের জন্য সময় নিন

নিজের জন্য আলাদা সময়সূচী তৈরী করুন যেখানে শুধু নির্দিষ্ট ‘আমি’ থাকবে যেন আপনি নিজেকে স্নানসিক্ত করতে পারেন, পায়ের যত্ন নিতে পারেন, সিনেমা অথবা দোকানে যেতে পারেন, অথবা পুরোনো কোন কলিগ কে দুপুরের খাবারের জন্য ডাকতে পারেন যদি আপনার কোন বন্ধু অথবা প্রতিবেশী থাকে যাদেরও একটি শিশু আছে,তাদের সাথে বাচ্চা দেখাশুনা করার পালাক্রম তৈরী করে, সপ্তাহে কিছুটা সময় নিজের জন্য নিশ্চিত করুন এবং নিজের কাজ করুন  দুইজনের একসাথে শিশুটির সাথে থাকার প্রয়োজন নেই যেখানে আপনাদের মধ্যে আধা ঘণ্টা করে সময় ভাগ করে নিতে পারেন

এমন এক সময় আসবে যখন আপনি খেয়াল করবেন যে, আপনার অধিকাংশ সময়ই শিশুটিকে দেখাশোনার পিছনে ব্যয় হচ্ছ্‌ যে সময়টি আপনি অন্যকোন কাজ করতে পারতেন, একটি নতুন শখ তৈরী করুন অথবা খেলাধূলা করতে পারেন আপনি এ্যারোবিকস ক্লাশে যেতে পারেন যেখানে শিশুসদন রয়েছে, সাপ্তাহিক বয়স্ক শিক্ষা সেশন অথবা অন্যকোন ক্লাশ করতে পারেন, যা আপনাকে আনন্দ দিবে, যা আপনার বাড়ির আশেপাশে অবস্থিত সেখানে যেতে পারেন, তখন আপনি আপনার শিশুটিকে কোন বন্ধু অথবা আত্মীয়ের কাছে রেখে যেতে পারেন

0 comments

Leave a Reply